ফেনী ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে আইসিটি বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ফেনী কম্পিউটার ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন ফেনী ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ সাইফুদ্দিন শাহ্।

ইন্সটিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রেহান উদ্দিনের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন ফেনী ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর তায়েবুল হক, ফেনী কম্পিউটার ইন্সটিটিউটের কম্পিউটার সাইন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের প্রধান আফরোজা জয়নব, ইন্সটিটিউটের ডাটা নেটওয়ার্কিং টেকনোলজি বিভাগের প্রধান আবদুল্লাহ আল মামুন এবং সামি ফারুক। সেমিনারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিঃ সম্ভাবনার বাংলাদেশ শীর্ষক ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন ফেনী ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান মোঃ সাঈদ হোসেন পারভেজ।

আফরোজা আক্তারের সঞ্চালনায় সেমিনারে ইন্সটিটিউটের ডাটা নেটওয়ার্কিং টেকনোলজি, কম্পিউটার সাইন্স এন্ড টেকনোলজি এবং টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজি বিভাগের ৭ম সেমিস্টারের বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিল।

প্রধান অতিথি বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দ্রুত উন্নতীর সাথে আমাদের সমাজেও দ্রুত বিবর্তন সাধিত হয়ে চলেছে। উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্য হচ্ছে মন ও মননশীলতার বিকাশ ঘটানো; উচ্চশিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে পরিবর্তিত অবস্থার সাথে খাপ খাওয়ানোর কৌশল অর্জন করা। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বাংলাদেশ সরকারের লক্ষ্য হলো ২০২১ সালের মধ্যে ২০ লক্ষ আইসিটি গ্র্যাজুয়েট তৈরি করা। এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অন্যান্য ইউনিভার্সিটির সাথে ফেনী ইউনিভার্সিটিও অবদান রাখবে।

তিনি আরো বলেন, প্রতিষ্ঠার বিগত পাঁচ বছরে এ ইউনিভার্সিটিটির যে উন্নয়ন সাধিত হয়েছে তার বর্ণনায় প্রফেসর শাহ্ উল্লেখ করেন যে, ফেনী ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষক ও শিক্ষার মান এবং শিক্ষার পরিবেশ অনেক বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয় থেকে উন্নত; ইউনিভার্সিটিটির ভৌত অবকাঠামো তথা শ্রেণীকক্ষ, ল্যাবরেটরি, লাইব্রেরীর মান প্রশংসনীয়; প্রতিটি বিভাগে পর্যাপ্ত সংখ্যক উন্নতমানের ল্যাবরেটরি আছে যেখানে ছাত্র-ছাত্রীগন সহজেই ব্যবহারিক ক্লাশের সুযোগ গ্রহন করতে পারে।