গবেষণা হলো সত্য অনুসন্ধানের বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়া। আর সাধারণ অর্থে গবেষণা হলো সত্য ও জ্ঞানের অনুসন্ধান। গবেষণার মাধ্যমে নতুন নতুন জ্ঞানের সৃষ্টি হয়, সমাজ চিন্তা এবং সমাজ সচেতনতা বৃদ্ধি পায়। গবেষণার অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্যগুলো হলো কোন ঘটনা সম্পর্কে পরিচিতি হওয়া এবং সে ব্যাপারে অন্তদৃষ্টি প্রদান, সমাজে সমস্যা চিহ্নিত করণ এবং চিহ্নিত সমস্যার বাস্তব সমাধান প্রদান। গবেষণার এ বাস্তবিক এবং প্রায়োগিক প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে আজ ১ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রথমবারের মত ফেনী ইউনিভার্সিটি রিচার্স সেল যাত্রা শুরু করবে। এই প্রেক্ষাপটে বুধবার ফেনী ইউনিভার্সিটি মিলয়াতনে শিক্ষক এবং কর্মকর্তাদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন ফেনী ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো: সাইফুদ্দিন শাহ্। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর তায়বুল হক।
ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর শাহ্ পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টশনের মাধ্যমে কিভাবে একটি কার্যকরী গবেষণা প্রস্তাব লেখা যায়, একটি কার্যকরী গবেষণা প্রস্তাবের মৌলিক উপাদান সমূহ, প্রস্তাবণার বিভিন্ন স্তর, ইউনিভার্সিটি রিচার্স সেন্টারের গবেষণা প্রস্তাবণার বিষয়বস্তু এবং কার্যক্রমসহ গবেষণার বিভিন্ন দিক বিস্তারিত তুলে ধরেন। পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টশন শেষে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের গবেষণা সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের বিষয়ে আলোচনা হয়।
ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর তায়বুল হক বিশেষ অতিথির বক্তব্যে গবেষণার উদ্দেশ্য, গবেষণার মাধ্যমে কিভাবে সমাজের গুনগত পরিবর্তন সম্ভব এবং গবেষকদের নীতি ও নৈতিকতার উপরে বিশেষভাবে আলোকপাত করেন। উক্ত কর্মশালায় আরো বক্তব্য রাখেন রিচার্স সেন্টারের সহকারি পরিচালক ও হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের জেষ্ঠ্য প্রভাষক কাজী মনিরুল আলম।